× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

গ্রাহকদের পাওনা টাকা ফেরত দিচ্ছে ইভ্যালি

প্রবা প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৮:৩৬ পিএম

আপডেট : ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২০:১৫ পিএম

ইভ্যালির গ্রাহকদের অভিযোগ নিষ্পত্তির মাধ্যমে পাওনা টাকা ফেরত দেওয়ার অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। প্রবা ফটো

ইভ্যালির গ্রাহকদের অভিযোগ নিষ্পত্তির মাধ্যমে পাওনা টাকা ফেরত দেওয়ার অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। প্রবা ফটো

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির বিরুদ্ধে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে মামলা করে ১৫০ জন গ্রাহক তাদের পাওনা টাকার আংশিক ফেরত পেয়েছেন। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য গ্রাহকদের অর্থও ফেরত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী (সিইও) মোহাম্মদ রাসেল।

রবিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) কারওয়ান বাজারের টিসিবি ভবনে ইভ্যালির গ্রাহকদের অভিযোগ নিষ্পত্তির মাধ্যমে পাওনা টাকা ফেরত দেওয়ার অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। অনুষ্ঠানে সাড়ে ৬ হাজার অভিযোগের মধ্যে ১৫০টির নিষ্পত্তি করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, ভোক্তা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান। উপস্থিত ছিলেন ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মোহাম্মাদ রাসেল, কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন কবির, ভোক্তা অধিদপ্তরের পরিচালক ফকির মো. মনির।

সফিকুজ্জামান বলেন, ‘ভোক্তা অধিদপ্তরে বর্তমানে ১১ হাজার মামলা ঝুলে আছে। তার মধ্যে ইভ্যালির মামলা অনেক। এর মধ্যে ইভ্যালির সাড়ে ৬ হাজার মামলা নিষ্পত্তি চাওয়া হয়। খোঁজ-খবর নিয়ে ১৫০টি মামলা নিষ্পত্তি করা হয়েছে। চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহে আরও কিছু মামলা নিষ্পত্তি করা হবে। ইভ্যালির ১৭ কোটি টাকা আটকা ছিল। সেখানে ১০ কোটি টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে।’

মহাপরিচালক বলেন, ‘ইভ্যালির রাসেল ২৭ মাস জেলে ছিলেন। তার যদি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়, তাহলে এ অভিযোগগুলো নিষ্পত্তি হবে না। যে টাকা গ্রাহকের কাছ থেকে চলে গেছে, সেগুলো তারা ফেরত পাবেন না। তাই তাদের (ইভ্যালি) ব্যবসায় ফিরে আসার সুযোগ করে দিতে হবে।’

ই-কমার্স থেকে কেনাকাটায় ভোক্তার সচেতনতা প্রয়োজন উল্লেখ করে সফিকুজ্জামান বলেন, ‘ভোক্তারা যতক্ষণ পর্যন্ত সচেতন না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত এমন প্রতারণা চলবে। তাই ভোক্তাদের উচিত কোন সাইট প্রকৃত, কোনটা প্রকৃত নয় সেটি দেখেশুনে কেনাকাটা করা।’

তিনি আরও বলেন, ‘ই-কমার্সকে আমরা ঠেকিয়ে রাখতে পারব না। ই-কমার্স এগিয়ে যাবে। প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে গেলে অবশ্যই ই-কমার্সের বিস্তার ঘটাতে হবে।’

ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী (সিইও) মোহাম্মদ রাসেল বলেন, ‘গত এক মাস আয় করে এসব টাকা ফেরত দেওয়া হচ্ছে। এক মাসে ৬৫ হাজার অর্ডার সরবরাহ করা হয়েছে। এখন প্রডাক্ট হাতে দিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হচ্ছে। কোরিয়ার কোম্পানির মাধ্যমে কাজ করছি। তবে যারা অভিযোগ করেনি তাদেরও টাকা দেওয়া হবে। এজন্য আমাদের ব্যবসা করার সুযোগ দিতে হবে। সবার টাকা ফেরত দেওয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘ওয়ালটন, যমুনা, মিনিস্টার সবাই পণ্য দিচ্ছে। তারা ভালো অর্থ দেয়। দেনা-পাওনা পরিশোধ করতে পারলে ব্যবসা আরও ভালো হবে। পছন্দ না হলে পণ্য ফেরত নেওয়া হচ্ছে।’

কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এর সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন কবির বলেন, ‘কাউকে শাস্তি দিয়ে আমাদের লাভ নেই। যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের টাকা ফেরত দিতে হবে। আজ শুরু হয়েছে, যারা আছে সবার প্রাপ্যতা ফিরিয়ে দিতে হবে।’

ভোক্তা অধিদপ্তরের পরিচালক ফকির মো. মনির বলেন, ‘ইভ্যালির বিরুদ্ধে আমাদের কাছে সাড়ে ৬ হাজার অভিযোগ পড়েছে। ইভ্যালি কথা দিয়েছে তারা পর্যায়ক্রমে ধীরে ধীরে পাওনা টাকাগুলো ফেরত দেবে।’

৩টি মোটরসাইল ও আনষঙ্গিক কিছু পণ্য নিতে ৫ লাখ ২০ হাজার টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন মো. ইলিয়াস হোসেন। তিনি সেসব টাকার মধ্যে ফেরত পেয়েছেন মাত্র ১১ হাজার টাকা। ইলিয়াস বলেন, ‘টাকাগুলো ফেরত পেলে আর কোনও দিন এ জাতীয় প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করবো না।’

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা