× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

ক্লান্তির ঘুম ভাঙল শরীরে আগুন লেগে

শহিদুল ইসলাম রাজী

প্রকাশ : ১৫ নভেম্বর ২০২৩ ১৪:৪০ পিএম

আপডেট : ১৫ নভেম্বর ২০২৩ ১৫:৪৭ পিএম

আব্দুল জব্বার। প্রবা ফটো

আব্দুল জব্বার। প্রবা ফটো

চিত হয়ে শুয়ে আছেন আব্দুল জব্বার। পুড়ে গেছে দুই হাত দুই পা। ক্ষতস্থান সাদা ব্যান্ডেজে মোড়া। হাত কিছুটা নড়াচড়া করতে পারেন, কিন্তু পা নাড়াতে পারেন না। যন্ত্রণায় ছটফট করছেন হাসপাতালের বিছানায়। তবুও এক-রাজ্য চিন্তা পরিবার নিয়ে। সেই পরিবারে আছে স্ত্রী, আছে চার সন্তান। তবে উপার্জনক্ষম ব্যক্তি মাত্র একজনই- তিনি। তাদের ডাল-ভাত জুটবে কেমন করে! কোত্থেকে আসবে চিকিৎসা খরচ! 

কয়েক বছর আগে নীলফামারীর জলডাঙ্গা থেকে জব্বার রাজধানী ঢাকায় এসেছিলেন ভাগ্য পরিবর্তনের আশায়। নিরীহ এই রিকশাচালকের জীবনটাই যেন অভিশপ্ত হয়ে উঠেছে এখন অবরোধের মধ্যে অগ্নিসন্ত্রাসের শিকার হয়ে। দিনভর রিকশা চালানোর পর বাসে চেপে গত শনিবার রাতে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ডে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু প্রচণ্ড ক্লান্তিতে একসময় বাসের সিটেই হেলান দিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। হঠাৎ ঘুম ভাঙে শরীরে আগুন লেগে যাওয়ায়। কিন্তু ততক্ষণে তার পায়ের চামড়া খসে খসে পড়ছে। ওই অবস্থায়ই দ্রুত বাস থেকে নেমে আসেন তিনি। পরে তাকে ভর্তি করা হয় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে।

বিএনপি-জামায়াতে ইসলামী ও তাদের সমমনা দলগুলোর ডাকা চতুর্থ দফা ৪৮ ঘণ্টা অবরোধ শুরুর আগের দিন শনিবার রাতে নারায়ণগঞ্জে যাওয়ার জন্য রাজধানীর রামপুরা থেকে অনাবিল পরিবহনের বাসে উঠেছিলেন রিকশাচালক জব্বার। বাসটি সায়েদাবাদ জনপদ মোড় পার হয়ে সামনের দিকে যেতেই সাড়ে ৯টার দিকে সেটিতে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। অগ্নিসন্ত্রাসীদের আগুনে মুহূর্তেই এলোমেলো হয়ে যায় নিরীহ এ মানুষটির জীবন। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পোস্তগোলা ফায়ার স্টেশনের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভায়। 

বর্তমানে আব্দুল জব্বার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট (এইচডিইউ) বেডে চিকিৎসা নিচ্ছেন। গতকাল সোমবার ওই ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায় দুই হাত উঁচু করে চিত হয়ে শুয়ে আছেন তিনি। কোমর থেকে শুরু করে দুই পায়ের পুরোটাই পুড়ে গেছে। লাল কম্বল দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে ক্ষতবিক্ষত কোমর ও পা। পুড়েছে দুই হাতের কনুইয়ের নিচের অংশটুকুও। প্রচণ্ড যন্ত্রণা নিয়ে বার্ন ইউনিটের এইচডিইউর বিছানায় কাতরাচ্ছেন তিনি। 

বুঝতেই পারলাম না আগুন লাগল কেমনে

বিছানার পাশে গিয়ে শনিবার রাতের ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে আব্দুল জব্বার প্রতিদিনের বাংলাদেশকে বলেন, ‘অবরোধে এমনেই আয়-ইনকাম কম হয়। তাই বড় ভাই ফোন দিয়ে নারায়ণগঞ্জ সাইনবোর্ড তার বাসায় যেতে বলেছিলেন। বলেছিলেন, রিকশা না চালিয়ে কয়েক দিন বিশ্রাম করতে। ওইদিন তাই রামপুরা থেকে বাসে উঠেছিলাম। বাসের মাঝখানে বসা ছিলাম। একটু ঘুমও এসে গিয়েছিল। বাসে আরও যাত্রী ছিল। তবে আমার পাশের সিট খালিই ছিল।’

জব্বার বলেন, ‘আমি বুঝতেই পারলাম না আগুন লাগল কেমনে। মনে হলো আমার সিটের সামনে থেকে হঠাৎ আগুন জ্বলে উঠল। আমি যে বাইর হব, তার কোনো সুযোগই পাই নাই। কোনো রকমে বের হয়ে দেখি পায়ের চামড়া খসে খসে পড়ছে। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় হাসপাতালে আসি।’ 

তিনি বলেন, ‘আমি যে কীভাবে বাইচা আইছি ভাই, আল্লাহ জানেন। আমি ঢাকা শহরে রিকশা চালাই। হাত-পা আর শরীরের শক্তি, এটাই আমার সম্বল। সেই হাত-পাও এখন শেষ। সংসারে পাঁচজন খানেওয়ালা। শুধু আমার শরীরের ওপর দিয়া আমি তাদের খাওয়াদাওয়া করাই। এহন এই পোড়া হাত-পা নিয়া আমি কী করমু, কন?’

টানাটানির সংসার আব্দুল জব্বারের

ছোটবেলাতেই বাবাকে হারান আব্দুল জব্বার। বেড়ে ওঠেন মানুষজনের বাড়িতে কাজকর্ম করেই। ২০০১ সালে ঢাকা শহরে আসেন ভাগ্যবদলের আসায়। সেই থেকে তিন চাকার যানে বাঁধা পড়ে তার জীবন। 

রিকশাচালক জব্বার জানান, তার স্ত্রী অসুস্থ ছিলেন। পেটে ইনফেকশন হয়েছিল। চিকিৎসার জন্য দেড় লাখ টাকা ঋণ নিয়েছিলেন। রিকশা চালিয়ে, এটা-ওটা করে একদিকে ঋণ শোধ করছিলেন, অন্যদিকে সংসার চালাচ্ছিলেন। এখন আগুনে পুড়ে শরীরের মাংস গলে গলে খসে পড়ার পর চোখে অন্ধকার দেখছেন। ঋণ শোধ করবেন কীভাবে, সংসার চলবে কেমন করে, চিকিৎসা খরচইবা পাবেন কোত্থেকে এসব প্রশ্নের কোনো উত্তর খুঁজে পাচ্ছেন না জব্বার।

জব্বারের বড় ভাই জগলু বলেন, ‘ওর চার ছেলেমেয়ে। বড় ছেলে কাজ করে ইটের ভাঁটায়। তাতে কি আর এত বড় সংসার চলে? সব খরচ তো জব্বারই দিত। অন্য ছেলেমেয়ে সবাই ছোট ছোট। ভাগ্য ভালো যে পুরো শরীর পোড়ে নাই।’ 

তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘আমরা তো নিরীহ মানুষ। কোনো রাজনীতিও করি না। রিকশা চালিয়ে পেট চালাই। যারা আগুন দেয়, তারা কি বুঝবে আমার জ্বালা?’ অপরাধীদের বিচারের দাবি জানান জগলু।

সংশ্লিষ্টদের বক্তব্য 

বার্ন ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক তরিকুল ইসলাম বলেন, ‘জব্বারের শরীরের ২০ শতাংশ পুড়ে গেছে। তার হাত-পা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অবস্থা আশঙ্কাজনক না হলেও পোড়া ক্ষত একটু গভীর। সেরে উঠতে সময় লাগবে। তাকে এইচডিইউতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।’ 

সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, নাশকতাকারীরা বিভিন্ন যানবাহনে অগ্নিসংযোগ ও নাশকতা ঘটিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, গণমাধ্যমকর্মী বা সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে চলে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে মানুষকে সতর্ক ও সচেতন থাকার অনুরোধ করেন র‌্যাবের এই কর্মকর্তা। 

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) ড. খ: মহিদ উদ্দিন বলেন, ‘যারা যাত্রী বেশে চোরাগোপ্তা হামলা কিংবা নাশকতা করছে, তাদের প্রতিরোধ করা বেশ চ্যালেঞ্জিং। তবে আমাদের চেষ্টা আছে। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে।’ বাসে অগ্নিসন্ত্রাস রোধে গৃহীত কয়েকটি পদক্ষেপের কথা জানিয়ে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, নাশকতা প্রতিরোধে আমরা আরও কিছু পদ্ধতি নতুন করে শুরু করব। যাতে বাসে যাত্রীবেশে নাশকতাকারীদের আগুনে দেওয়া কঠিন হয়। আরও কিছু কাজ আমরা করব, সেগুলো এখন বলতে চাচ্ছি না। এসব নির্মম কাজের জন্য দেশের প্রচলিত আইন খুবই কঠোর। নাশকতাকারীরা যদি এসব বন্ধ না করে, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোরভাবে আইন প্রয়োগ করা হবে।’

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা