× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

নিরাপদ খাদ্যের জন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে : গোলাম রহমান

প্রবা প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১০:২১ এএম

আপডেট : ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১২:২৭ পিএম

 রাজধানীর হর্টেক্স ফাউন্ডেশনে ‘খাদ্য দূষণ এবং অসদুপায় প্রতিরোধে ভোক্তা সচেতনতা এবং সোচ্চার হওয়ার গুরুত্ব’ শীর্ষক সেমিনার। প্রবা ফটো

রাজধানীর হর্টেক্স ফাউন্ডেশনে ‘খাদ্য দূষণ এবং অসদুপায় প্রতিরোধে ভোক্তা সচেতনতা এবং সোচ্চার হওয়ার গুরুত্ব’ শীর্ষক সেমিনার। প্রবা ফটো

কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি ও সাবেক বাণিজ্য সচিব মো. গোলাম রহমান বলেছেন, বিগত ৯ বছরে খাদ্য কতটুকু নিরাপদ হয়েছে তা এখনই বলা সম্ভব নয়। নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে কেবলমাত্র ভোক্তাকে সচেতন হলে হবে না। বরং সব পক্ষকেই সচেতন হবে। আর এজন্য  নিরাপদ খাদ্য কার্যক্রম জোরদার করলে ধীরে ধীরে এসব উন্নতি হবে। 

জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ ফুড সেফটি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত ‘খাদ্য দূষণ এবং অসদুপায় প্রতিরোধে ভোক্তা সচেতনতা এবং সোচ্চার হওয়ার গুরুত্ব’ শীর্ষক সেমিনারে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।   

শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর হর্টেক্স ফাউন্ডেশনে সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়। 

বাংলাদেশ অ্যাক্রিডিটেশন বোর্ডের সাবেক সদস্য আবুল বাসার মিয়ার সভাপতিত্বে সেমিনারে সম্মানিত অতিথি ছিলেন সাবেক কৃষি সচিব আনোয়ার ফারুক, বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সাবেক সদস্য অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল আলীম, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সাবেক পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার প্রমুখ। 

মো. গোলাম রহমান বলেন, কেবলমাত্র ভোক্তা নয় সব পক্ষকেই সচেতন হতে হবে। এক সময়ের ফুড সেইফটি ফোরামের কার্যক্রম এখন আর দেখা যায় না। অনুরূপ ফোরাম বা নেটওয়ার্কের প্রতিষ্ঠা ভালো উদ্যোগ হবে। তারা একদিকে যেমন ভোক্তার হয়ে সোচ্চার হবে অন্যদিকে সরকারের বিভিন্ন সংস্থা এবং খাদ্য ব্যবসায়ীগণকে উৎসাহিত এবং সহযোগিতা করতে পারবে।

আনোয়ার ফারুক বলেন, নিরাপদ খাদ্য ধারণাটি বাংলাদেশে নতুন। সরকারের বিভিন্ন সংস্থা অধিক ফলাওকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে, এখন থেকে একই সঙ্গে নিরাপদ খাদ্য ফলাওয়ের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। এজন্য যেমন খাদ্য নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাগুলোকে জোরদার করতে হবে, তেমনি খাদ্য ব্যবসায়ীদের সার্বিক সহযোগিতা করতে হবে।

মো. আব্দুল আলীম বলেন, সরকার ভালোভাবে অনুধাবন করেছে যে নিরাপদ খাদ্য অনুশীলন ছোটকাল থেকেই করা প্রয়োজন। তাই ইতোমধ্যে প্রাথমিক পাঠ্য কার্যক্রমে তা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আগামীতে দশম শ্রেণি পর্যন্ত তা বর্ধিত হবে। স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য স্মার্ট সিটিজেন প্রয়োজন।  

ভোক্তার স্বার্থ রক্ষার্থে এবং তাদের কণ্ঠ বলিষ্ঠ করার লক্ষ্যে ভোক্তাস্বার্থ সংশ্লিষ্ট বেসরকারি সংগঠন, সিভিল সোসাইটি সংগঠন এবং খাদ্য ব্যবসায়ী সহকারে একটি ফুড সেইফটি ফোরাম বা নেটওয়ার্ক গঠনের প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয় সেমিনারে।

সেমিনারে বাংলাদেশ সুপারমার্কেট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশান, বাংলাদেশ রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি, কনজুমার্স অ্যাসোসিয়েশান অব বাংলাদেশ, বিএসটিআই, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, ভোক্তা প্রতিনিধি এবং ফাউন্ডেশনের প্রতিনিধিগণ অংশগ্রহণ করেন। এ ছাড়াও একাডেমিয়া, কৃষিবিদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ বিশেষজ্ঞ, কৃষি উদ্যোক্তাগণও অংশগ্রহণ করেন।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা