× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

প্রথম দিন ভিড় কম, ট্রেনে স্বস্তির ঈদযাত্রা

প্রবা প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০৩ এপ্রিল ২০২৪ ২৩:৩৫ পিএম

রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে ট্রেনের অপেক্ষায় যাত্রীরা। ছবি : সংগৃহীত

রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে ট্রেনের অপেক্ষায় যাত্রীরা। ছবি : সংগৃহীত

বুধবার (৩ এপ্রিল) শুরু হয়েছে ঘরমুখী মানুষের স্রোত। পবিত্র ঈদুল ফিতরের আট দিন আগে আগাম টিকিটে ঈদযাত্রা শুরু হওয়ায় ভোগান্তি ছিল না। ছিল না উপচেপড়া ভিড়। বলা যায়, অনেকটা স্বচ্ছন্দে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে মানুষ। যারা অনলাইন টিকিট পাবেন না তারাও যাতে দাঁড়িয়ে যেতে পারেন, সে জন্য আলাদা টিকিটের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম। তিনি বলেন, অনলাইনের টিকিট যাতে কালোবাজারে যেতে না পারে সে ব্যাপারেও ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ঈদের সময় টিকিটের কালোবাজারি ঠেকাতে 'টিকেট যার ভ্রমণ তার' কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন প্লাটফর্মের প্রবেশপথে বসানো হয়েছে তিন স্তরের নিরাপত্তা। বুধবার সরেজমিনে দেখা যায়, স্টেশনে ঢোকার মুখেই বাঁশ দিয়ে কয়েকটি প্রবেশপথ বানানো হয়েছে। সেখানে হাতে টিকেট পরীক্ষা করার মেশিন নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন রেল কর্মকর্তারা। তাদের ওই মেশিনে টিকিট স্ক্যান করার পর তবেই যাত্রীরা ঢুকতে পারছন প্ল্যাটফর্মে।

ভোর ৬টায় ঢাকা থেকে রাজশাহীর উদ্দেশে প্রথম ট্রেন ধূমকেতু এক্সপ্রেস ছেড়ে যাওয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে ঈদযাত্রা। এরপর কক্সবাজারগামী দ্বিতীয় ট্রেন পর্যটক এক্সপ্রেস ছেড়ে যায় ভোর ৬টা ১৫ মিনিটে। আর তৃতীয় ট্রেন সিলেটগামী পারাবত এক্সপ্রেস ঢাকা ছাড়ে সাড়ে ৬টায়।

সকালের দিকে ছেড়ে যাওয়া ট্রেনে বেশি ভিড় দেখা যায়নি। তবে দুপুরের পর স্টেশনে যাত্রীদের ভিড় বাড়তে থাকে। যাত্রীরা বলছেন, আগে ঈদযাত্রায় অনেক ভিড় হতো। আজকে চার-পাঁচটি চেকপোস্ট পার করে আসতে হয়েছে। এতে অতিরিক্ত মানুষ নেই। শুধু ঈদযাত্রা না, সারা বছরই রেলের এ উদ্যোগ কার্যকর রাখার দাবি তাদের।

স্টেশনের প্রবেশমুখে টিকিট পরীক্ষার দায়িত্বে থাকা এএইচএম সাজ্জাদুল বলেন, এখনো টিকিট ছাড়াই স্টেশনে চলে আসছেন অনেকে। কেউ আসছেন অন্যের টিকেট নিয়ে। আজ আমরা অনেকেকে জরিমানা করেছি। তাদের বুঝিয়েছি নিজের টিকিট নিজে নিয়ে আসার জন্য। পরিস্থিতি আগের চেয়ে অনেক ভালো। কালোবাজারিদের কোনো দৌরাত্ম্য নেই। খুব শৃঙ্খলার সঙ্গে যাত্রীরা যাচ্ছেন।

রাজশাহীগামী সিল্ক সিটি এক্সপ্রেসের যাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাহিদ আহমদ বলেন, এবার অনলাইনে টিকিট কিনেছি। ফলে ভোগান্তি কম হয়েছে। স্টেশনেও তেমন ঝামেলা নেই। শেষ পর্যন্ত রেলওয়ে এটা ধরে রাখতে পারলেই হয়। কমলাপুর স্টেশনের ম্যানেজার মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার বলেন, সকালে রংপুর এক্সপ্রেস এবং সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস কিছুটা দেরি করে ছেড়েছে। কারণ ওই ট্রেন ঢাকায় এসেছে দেরিতে। এছাড়া আর সবকিছুই স্বাভাবিক।

আগামী ১১ এপ্রিল ঈদের সম্ভাব্য দিন হিসাব করে ঈদযাত্রার সূচি সাজিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। গত ১৩ মার্চ সংবাদ সম্মেলনে ঈদের আগাম টিকিট বিক্রির সূচি ঘোষণা করেন রেলওয়ের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) সরদার সাহাদাত আলী। সূচি অনুযায়ী, গত ২৪ মার্চ অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু করে রেল কর্তৃপক্ষ। ওই দিন দেওয়া হয় ৩ এপ্রিলের টিকেট। এভাবে পর্যায়ক্রমে ৩০ মার্চ বিক্রি হয় ৯ এপ্রিলের অগ্রিম টিকেট। এবার ঈদের আগে সারা দেশের বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী আন্তঃনগর ট্রেনের ৩৩ হাজার ৫০০টি টিকেট বিক্রি হবে। ঈদ উপলক্ষে সারা দেশের বিভিন্ন রুটে আটজোড়া বিশেষ ট্রেন চালানোর কথা জানিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।

যাত্রীসেবা বাড়াতে কোচ-ইঞ্জিন আমদানি করা হচ্ছে: রেলমন্ত্রী

রেলের যাত্রীসেবা বাড়ানোর জন্য কোচ আমদানি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম। তিনি বলেন, আমরা ২০০ বগি আমদানির অনুমোদন পেয়েছি। আশা করি এক বছরের মধ্যে ৭০০ থেকে ৮০০ কোচ এবং ইঞ্জিন আমদানি করে ট্রেনে যাত্রী পরিবহনের ক্ষমতা এবং মাল পরিবহনের ক্ষমতা বাড়াতে পারব। গতকাল বুধবার দুপুরে রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি। 

ঈদযাত্রায় আসন না পেয়ে ঝুঁকি নিয়ে ট্রেনের ছাদে অনেকের ঘরে ফেরার চেষ্টা বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে রেলমন্ত্রী বলেন, এ ব্যাপারে আমাদের নিরাপত্তা বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া আছে। আমাদের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী যারা আছেন, কেউ যাতে ছাদে ভ্রমণ করতে না পারেন সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

রেলের কেনাকাটা ও দুর্নীতি বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, কোনো সংস্থাই চায় না সেই সংস্থার মধ্যে দুর্নীতি থাকুক। আমরাও চাই না রেলের মধ্যে দুর্নীতি থাকুক। কেনাকাটায় সব জায়গাতেই কিছু না কিছু দুর্নীতি থাকে। অনেক বড় বড় জায়গায়ও হয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে রেল অনেক ছোট জায়গা। অনেক নামীদামি জায়গাতেও ক্রয়ের ক্ষেত্রে কিছুটা দুর্নীতি থাকে। তার পরও আমরা চেষ্টা করছি যেন রেলে কোনো ধরনের এ রকম কিছু না থাকে। আমরা চেষ্টা করব সব রকম দুর্নীতি বন্ধ করতে।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা