× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

হরতাল-অবরোধ

সিলেট বিএনপির ‘চার খলিফা’র কেউই নেই মাঠে

কাওছার আহমদ, সিলেট

প্রকাশ : ১৫ নভেম্বর ২০২৩ ১৬:১০ পিএম

আপডেট : ১৫ নভেম্বর ২০২৩ ১৭:৩৮ পিএম

সিলেট বিএনপির ‘চার খলিফা’র কেউই নেই মাঠে

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদে রয়েছেন সিলেট বিএনপির চার নেতা। যাদের ইশারায় পরিচালিত হয় সিলেট বিএনপি। সরকারবিরোধী অধিকাংশ কর্মসূচিতে একসঙ্গে থেকে সিলেটের রাজপথে নেতৃত্ব দিয়েছেন তারা। এদের কারও কারও নিজস্ব বলয়ও রয়েছে। মাঝেমধ্যে নিজেদের অনুসারীদের নিয়ে আলাদাভাবে শোডাউনও করে থাকেন তারা। স্থানীয় নেতাকর্মীদের কাছে এই চার উপদেষ্টা পরিচিতি পেয়েছেন ‘চার খলিফা’ হিসেবে। তবে নেতাকর্মীদের অভিযোগ, বিএনপি আহূত সাম্প্রতিক হরতাল-অবরোধগুলোয় তাদের কাউকেই মাঠে দেখা যাচ্ছে না। এ নিয়ে অনেকের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে, অনেকে হতাশাও প্রকাশ করছেন।

সিলেট বিএনপির এই চার খলিফা হলেনÑ তাহসিনা রুশদীর লুনা, খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, এনামুল হক চৌধুরী ও আরিফুল হক চৌধুরী।

গত ২৮ অক্টোবর ঢাকার মহাসমাবেশে দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের পর লাগাতার আন্দোলনের ডাক দেয় বিএনপি। সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ঘোষণা করে পরদিন ২৯ অক্টোবর। এরপর থেকে দফায় দফায় অবরোধ কর্মসূচির ঘোষণা দিচ্ছে বিএনপি। সিলেটে এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য তৃণমূলের কর্মীরা বিক্ষিপ্তভাবে চেষ্টা করলেও মাঠে নেই শীর্ষ নেতারা। সরকার পতনের হার্ডলাইনের এ আন্দোলনে সিলেট জেলা ও মহানগরের দায়িত্বশীল নেতাদের ভূমিকা নিয়েও অসন্তোষ রয়েছে তৃণমূলে। এ অবস্থায় আজ বুধবার থেকে ফের পঞ্চম দফা ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ-কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।

সিলেটের কর্মসূচিতে সক্রিয় যুবদল-ছাত্রদল

বিএনপি আহূত বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নে সক্রিয় রয়েছেন যুবদল, ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা। প্রথম দফা অবরোধের প্রথম দিন ৩১ অক্টোবর পিকেটিং করার সময় সিলেটে মৃত্যু ঘটেছে যুবদল নেতা দিলু আহমদ জিলুর। তিনি গোলাপগঞ্জ উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও গোলাপগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ মদনগৌরী এলাকার এলাইছ মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় অবরোধের মধ্যেই সিলেট বিভাগে ১ নভেম্বর হরতালের ডাক দেয় সিলেট জেলা যুবদল। এই হরতাল চলাকালে সিলেট নগরীর বন্দরবাজার এলাকায় ছাত্রদল ও শিবিরের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় দুটি মামলা হয়েছে। এ দুই মামলায় বিএনপি-জামায়াতের আড়াই শতাধিক নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে। কোতোয়ালি থানায় গত ২ নভেম্বর একটি মামলা করেছেন ছাত্রলীগ নেতা ইমন আহমদ। পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে একই দিন আরেকটি মামলা করেছেন কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কল্লোল।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপি) কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ আলী মাহমুদ। তিনি জানান, ছাত্রলীগ নেতার মামলায় এজাহারনামীয় ১৪ জন এবং অজ্ঞাত ৫০/৫৫ জনকে অভিযুক্ত করা হয়। এজাহারনামীয় আসামিরা হলেন- সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি সুদীপ জ্যোতি, সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি আহসান, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দিনার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক আব্দুল আহাদ খান জামাল ও সদস্য সচিব শাকিল মোর্শেদ, মহানগর বিএনপির সাবেক সদস্য সচিব মিফতা সিদ্দিকী, জেলা বিএনপির সদস্য ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য মাহবুবুল হক চৌধুরী, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আফছর খান, বিএনপি নেতা মোমিনুল হক, সাবেক ছাত্রদল নেতা মকসুদ আহমদ এবং জামায়াত-শিবিরের ফখরুল ইসলাম, আব্দুর রহমান, ওলিউর রহমান ও জয়নাল আবেদীন।

এ ছাড়া পুলিশের দায়ের করা মামলায় ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ১৭০/১৮০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এজাহারনামীয় আসামিরা হলেনÑ মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি আহসান, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দিনার, ছাত্রদল নেতা আব্দুস সালাম টিটু, উবায়েদ, ওলিউর রহমান ঝুনু, সাবেক ছাত্রদল নেতা আরাফাত চৌধুরী জাকি, তারেক, শাকিল মুর্শেদ এবং জামায়াত-শিবিরের আফজাল আহমেদ, সুজাত আহমদ, রায়হান, আবিব, নাছির ও শিব্বির আহমদ।

নেতাদের অভিমত

সিলেট জেলা বিএনপির প্রশিক্ষণবিষয়ক সম্পাদক শরীফুল হক বলেন, সিলেটে শীর্ষ পর্যায়ের অনেক নেতা নীরব রয়েছেন। তবে কর্মীরা সরব আছেন, আন্দোলন হবে। হার্ডলাইনের আন্দোলনে নেতারা মাঠে থাকলে কর্মীরা আরও শক্তি ও সাহস পাবেন। 

তবে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সহসভাপতি ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মাহবুবুল হক চৌধুরী বলেন, ‘আন্দোলনে নিহত যুবদল নেতার লাশ গ্রহণ করেছেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবেক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি জানাজায়ও অংশ নিয়েছেন। এরপর আরেক উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির ওই যুবদল নেতার বাড়িতে গিয়ে পরিবারের খোঁজখবর নিয়েছেন।’ তিনি বলেন, ‘আন্দোলনে কে এলো আর কে এলো না, তা দেখার সময় নেই।’ 

সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী বলেন, ‘কর্মীদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই। আন্দোলন সঠিকভাবে হচ্ছে, শীর্ষ নেতারাও আন্দোলনে রয়েছেন।’

এ বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের এই চার উপদেষ্টার মধ্যে ড. এনামুল হক চৌধুরীর বক্তব্য পাওয়া গেলেও অন্য তিনজনকে মোবাইল ফোনে পাওয়া যায়নি। এনামুল হক চৌধুরী প্রতিদিনের বাংলাদেশকে বলেন, ‘আমরা কর্মীদের পাশে আছি। তবে কৌশলে দায়িত্ব বণ্টন করে আন্দোলনে আছি।’

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা