× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

তারা নিজেরাই প্রার্থী, নিজেরাই কর্মী

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০১ জানুয়ারি ২০২৪ ১৫:৪৫ পিএম

আপডেট : ০১ জানুয়ারি ২০২৪ ১৯:৩৬ পিএম

জাসদ মনোনীত প্রার্থী শেখ নুরুজ্জামান মাসুম (মাথায় লাল ক্যাপ পড়া) নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। প্রবা ফটো

জাসদ মনোনীত প্রার্থী শেখ নুরুজ্জামান মাসুম (মাথায় লাল ক্যাপ পড়া) নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। প্রবা ফটো

শহরের অলিগলি ছাপিয়ে গ্রামে-গ্রামে ঘুরে একাই নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন প্রার্থী। নিজেরাই পোস্টার লাগাচ্ছেন, লিফলেট বিতরণ করছেন, এমনকি মাইকিংও করছেন। প্রচারণার সময় তাদের সঙ্গে কোনো সমর্থক বা কর্মীকে দেখা যাচ্ছে না। ভোট প্রার্থনা করে তারা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন, নির্বাচিত হতে পারলে মেহনতি মানুষ, কৃষক, শ্রমিক ও জনগণের উন্নয়নে কাজ করবেন।

বাগেরহাট-৩ (রামপাল-মোংলা) আসনে এই প্রার্থীদের নাম জাসদ মনোনীত শেখ নুরুজ্জামান মাসুম। তার প্রতীক মশাল। তিনি খুলনা দাকোপ উপজেলার বানিশান্তা গ্রামের তাজউদ্দিন শেখের ছেলে। তৃণমূল বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ম্যানুয়েল সরকার। তার প্রতীক সোনালি আঁশ। তিনি মোংলা উপজেলার দক্ষিণ কাইনমারী গ্রামের অসীম সরকারের ছেলে।

সোমবার (১ জানুয়ারি) দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার চাপড়া এলাকায় ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকে করে নিজের পক্ষে ভোট চেয়ে মাইকিং করে প্রচারণা চালাচ্ছেন মাসুম। এরই মধ্যে নিজের নির্বাচনী গান বাজাচ্ছেন। এভাবেই গান বাজিয়ে, নিজের ভোট প্রার্থনা করে তার ইজিবাইকটি ছুটে যায় এই আসনের আরেক উপজেলা রামপালে। 

এসময় কথা হলে জাসদের এই প্রার্থী জানান, নিজের প্রচারণা নিজে চালিয়ে ভোট চাওয়ায় জনগণের মধ্যে অন্যরকম সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। বিষয়টি তিনি ভালোভাবে দেখছেন। আক্ষেপের সুরেই তিনি জানালেন যে যাদেরকে পোস্টার লাগাতে দেওয়া হয়, তারা কেউ ঠিকমতো কাজ করেন না, এরপর ঘুরে এসে টাকা চান। এজন্য নিজের কাজ নিজেই করছেন মাসুম। 

নির্বাচনে জয় লাভের ব্যাপারে এই প্রার্থী বলেন, 'জনগণ যদি সঠিকভাবে ভোট দিতে পারে, তাহলে ৭ তারিখ দেখবেন আমার পক্ষে কী ফলাফল হয়।’ যদিও এই প্রার্থী ১৯৯৬ সালে খুলনা-১ (দাকোপ বটিয়াঘাটা) আসনে জাসদ থেকে নির্বাচন করে বড় ব্যবধানে পরাজিত হয়েছেন। এবারই প্রথম বাগেরহাট-৩ আসন থেকে একই দল থেকে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন তিনি। 

এদিকে নিজের প্রচারণা নিজে চালিয়ে ব্যাপক সাড়া ফেলে দিয়েছেন দাবি করে অপর প্রার্থী তৃণমূল বিএনপির ম্যানুয়েল সরকার বলেন, ‘বিষয়টি খুবই সন্তোষজন। ভোটাররা আমাকে দেখামাত্রই কাছে এসে বুকে জড়িয়ে ধরছেন। এই এলাকায় রিজার্ভ ভোট আছে, সুষ্ঠু ভোট হলে আমিই পাশ করব।’ 

নির্বাচনী প্রচারণায় লিফলেট বিতরণ করছেন তৃণমূল বিএনপির ম্যানুয়েল সরকার। প্রবা ফটো

বাগেরহাট-৩ আসনে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থীর প্রতিদ্বন্দ্বী ঈগল প্রতীক নিয়ে যে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন সেও আওয়ামী লীগের। এজন্য তাদের দু'জনের ভোট ভাগ হতে পারে বলে মনে করেন এই প্রার্থী। সেটা হলে বিএনপি জামায়েতের শতভাগ ভোট তিনিই পাবেন বলে আশা করেছেন ম্যানুয়েল সরকার। এছাড়া তিনি বলেন, ‘একা একা প্রচারণা চালানোর অনেক সুবিধা আছে। সরাসরি ভোটারদের সঙ্গে কথা বলা যাচ্ছে। তাদের মনের কথা শুনতে পারছি। আমার এ পদ্ধতির প্রচারণায় সাধারণ মানুষও খুশি।’

তবে সাধারণ ভোটারদের মাঝে তাকে নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। অনেকের মতে, যাদের কর্মী নাই, সমর্থক নাই তারা কীসের ভোট পাবে? একা একা কতদূর যাওয়া যায়। আবার কেউ কেউ বলছেন, শত শত লোক নিয়ে মিছিল করলেই ভোট পাওয়া যায় না। অনেকে সুবিধা নিয়ে মিছিলে যায়। 

পেড়ীখালী এলাকার বাসিন্দা মাসুদ রানা বলেন, ‘অন্য প্রার্থীরা দলবল নিয়ে গাড়িবহরে করে ভোট চাইতে আসেন। অনেক মানুষের ভিড়ে কখনো কখনো আমরা বিরক্ত হই। কিন্তু একা প্রচারণা চালানো প্রার্থীরা ব্যতিক্রমভাবে একাই প্রচারণা চালাচ্ছেন। এটা আমাদের ভালো লেগেছে। একা থাকলে প্রাণ খুলে কথা বলা যায়, ভাব বিনিময় করারও সুযোগ হয়।’

মোংলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রামপাল ও মোংলা উপজেলা নিয়ে গঠিত বাগেরহাট-৩ আসনে আছে একটি পৌরসভা ও ১৬টি ইউনিয়ন। এখানে ভোটার আছেন ২ লাখ ৫৪ হাজার ৮৯৫ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ২৭ হাজার ১৭৭ এবং নারী ভোটার ১ লাখ ২৭ হাজার ৭১৮ জন। আসনটিতে এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৭জন প্রার্থী। জাসদ ও তৃণমূলের এই দু’জন ছাড়া বাকিরা হলেন- আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও বর্তমান সংসদ সদস্য বেগম হাবিবুন নাহার, শক্তিশালী স্বতন্ত্র প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিস আলী ইজারদার, জাতীয় পার্টির মনিরুজ্জামান মনি, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মফিজুল ইসলাম গাজী ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলন বিএনএমের সুব্রত মন্ডল। 

প্রতীক বরাদ্দের পরদিন থেকেই শুধু নৌকা আর ঈগল প্রতীকের প্রার্থীরা মাঠে নামলেও শেষের দিকে এসে এসব প্রার্থীরা প্রচারণায় শামিল হচ্ছেন। 

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা