× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

লক্ষ্মীপুর-৪

নৌকার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আ.লীগের ৫০ নেতা

আমানত উল্যাহ, কমলনগর (লক্ষ্মীপুর)

প্রকাশ : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪ ২২:০০ পিএম

আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪ ২২:৩৯ পিএম

নৌকার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আ.লীগের ৫০ নেতা

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রচারের শুরুতেই লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি-কমলনগর) আসনে স্পষ্ট হয়েছে আওয়ামী লীগের গৃহদাহ। নৌকার বিরুদ্ধে দলটির ৫০ জনের অধিক নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। এতে নৌকার প্রধান প্রতিপক্ষ হয়ে উঠেছে নিজ দলেরই শীর্ষ অর্ধশতাধিক নেতা ও তাদের অনুসারীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অভ্যন্তরীণ কোন্দল, অবমূল্যায়ন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর স্থানীয় প্রভাব এবং কারও বিরাগভাজন হতে না চাওয়ায় তৃণমূল আওয়ামী লীগের অনেক শীর্ষ নেতা নৌকাকে সমর্থনের প্রশ্নে নীরব। ভবিষ্যতে এই দুই উপজেলায় দলটির সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ফেরাতে বেগ পেতে হবে বলে মনে করছেন অনেকে।

এই আসন থেকে ৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিলেও আওয়ামী লীগ মনোনীত ফরিদুন্নাহার লাইলী মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। তার জায়গায় দলীয় মনোনয়ন পান জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের মোশারফ হোসেন। দুই প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হলে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয় ছয় প্রার্থীর মধ্যে। এদের মধ্যে ১৪ দলের প্রার্থী মোশারফ হোসেন পান নৌকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী ইস্কান্দার মির্জা শামীম এবং আবদুল্লাহ আল-মামুনের প্রতীক যথাক্রমে ট্রাক ও ঈগল। বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির মোহাম্মদ সোলায়মান পান একতারা, মাহমুদা আক্তার তবলা ও আব্দুস সাত্তার রকেট প্রতীক পান।

রামগতি উপজেলার সাধারণ সম্পাদক, পৌরসভার মেয়র, কমলনগরের উপজেলা সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদকসহ বেশ কিছু নেতা নৌকার পক্ষে থাকলেও অন্য শীর্ষ নেতারা প্রকাশ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন। বাকি নেতাকর্মীরা নৌকার পক্ষে সক্রিয়তা দেখালেও গোপনে তারাও স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে একাট্টা।

কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রাজু বলেন, ‘নৌকার প্রার্থীর পরিবর্তন দলের সিদ্ধান্তের বিষয়। নিবেদিত কর্মী হিসেবে সব সময় দলের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাই। দল যাকে নৌকা দিয়েছে তাকে বিজয়ী করতে সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবে বলেই মনে করি।’

রামগতি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ মুরাদ বলেন, আমরা স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুনের পক্ষে। তার জন্য দলের নেতাকর্মীরা এক হয়ে কাজ করবে। আমরা কারও পক্ষে ভাড়া খাটতে রাজি নই। আমরা দলীয় এমপি চাই।

স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘আমি দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলাম। কিন্তু পাইনি। স্বতন্ত্র প্রার্থীর জন্য নির্বাচনী মাঠ উন্মুক্ত ঘোষণার কারণেই প্রার্থী হয়েছি। সাধারণ মানুষের দারুণ সাড়া পাচ্ছি। জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।’

নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন বলেন, ‘আমি এখানকার সাবেক সংসদ সদস্য। এমপি থাকাকালীন জনগণের জন্য কাজ করেছি। নিজের স্বার্থে কিছুই করিনি; অন্যায়কে প্রশ্রয় দিইনি। ১৪ দলীয় জোট থেকে আমাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। নৌকা প্রতীক নিয়ে ভোট করছি। জয়ের ব্যাপারে আমি আশাবাদী।’

লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুরুদ্দীন চৌধুরী নয়ন বলেন, প্রধানমন্ত্রী যার হাতে নৌকা তুলে দিয়েছেন, সবাই তার পক্ষে কাজ করতে হবে। 

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা