× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

টাঙ্গাইল

আটটি আসনের ছয়টিতেই লড়াই হবে ‘হাড্ডাহাড্ডি’

হাসান সিকদার, টাঙ্গাইল

প্রকাশ : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪ ২৩:১০ পিএম

আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪ ২৩:১৬ পিএম

আটটি আসনের ছয়টিতেই লড়াই হবে ‘হাড্ডাহাড্ডি’

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইলের আটটি আসনের ছয়টিতেই ‘হাড্ডাহাড্ডি’ লড়াইয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। আসনগুলো হলোÑ টাঙ্গাইল-২, ৩, ৪, ৫ ও ৮। এর মধ্যে টাঙ্গাইল-২ ও ৩ আসনে নৌকার প্রার্থীরা কিছুটা সুবিধায় থাকলেও অন্যরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর দাপটে একপ্রকার কোণঠাসা। জেলার স্থানীয় রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে। তাদের মতে, এবারের নির্বাচন অনেকটা ভাইয়ের বিরুদ্ধে ভাইয়ের প্রতিদ্বন্দ্বিতার মতো।

টাঙ্গাইল-১ (মধুপুর-ধনবাড়ী) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক। এ আসনে শক্ত কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় তিনি অনায়াসে নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ আসনের অন্য প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা হচ্ছেনÑ বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত স্বতন্ত্র প্রার্থী খন্দকার আনোয়ারুল হক (ট্রাক), কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের ফারুক আহাম্মেদ (গামছা) ও জাতীয় পার্টির মোহাম্মদ আলী (লাঙ্গল)।

টাঙ্গাইল-২ (গোপালপুর-ভূঞাপুর) আসনে নৌকার প্রার্থী সংসদস সদস্য তানভীর হাসান ছোট মনির। তার শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে রয়েছে ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী পদত্যাগকারী গোপালপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইউনুছ ইসলাম তালুকদার ঠান্ডু। ভোটের হিসাবে একই দলের এ দুই প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। এ আসনের অন্য প্রার্থীরা হলেনÑ গণফ্রন্টের গোলাম সরোয়ার (মাছ), বাংলাদেশ কংগ্রেসের মোহাম্মদ রেজাউল করিম (ডাব), ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মো. সাইফুল ইসলাম (আম) ও জাতীয় পার্টির হুমায়ুন কবীর তালুকদার (লাঙ্গল)। 

টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনে নৌকার প্রার্থী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান। ভালো মানুষ হিসেবে এলাকায় তার সুখ্যাতি রয়েছে। তার শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক সংসদ সদস্য ও ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আমানুর রহমান খানা রানা। টাঙ্গাইল শহরের কথিত ‘খান পরিবার’-এর বড় ছেলে তিনি। আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমদ হত্যাকাণ্ডের মামলায় প্রায় তিন বছর কারাগারে ছিলেন তিনি। এ আসনে অন্য প্রার্থীরা হলেনÑ জাতীয় পার্টির মো. আব্দুল হালিম (লাঙ্গল), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের জাকির হোসেন (নোঙ্গর), বাংলাদেশ সাম্যবাদী দলের (এমএল) সাখাওয়াত খান সৈকত (চাকা) ও ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টির হাসান আল মামুন সোহাগ (আম)। 

টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ট্রাক প্রতীকে লড়ছেন আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত ও সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং পাঁচবারের সংসদ সদস্য আবদুল লতিফ সিদ্দিকী। এখানে লতিফ সিদ্দিকীর প্রধান প্রতিপক্ষ তারই রাজনৈতিক শিষ্য কালিহাতী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নৌকার প্রার্থী মোজহারুল ইসলাম তালুকদার ঠান্ডু। আওয়ামী লীগের অধিকাংশ নেতাকর্মী হেভিওয়েট প্রার্থী লতিফ সিদ্দিকীর পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় তিনি অনেকটা ‘কোণঠাসা’ হয়ে পড়েছেন। এ আসনের অন্য প্রার্থীরা হলেনÑ প্রয়াত সাবেক মন্ত্রী শাহজাহান সিরাজের মেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী সারওয়াত সিরাজ শুক্লা (ঈগল), জাকের পার্টির মোন্তাজ আলী (গোলাপ ফুল), জাতীয় পার্টির লিয়াকত আলী (লাঙ্গল), তৃণমূল বিএনপির শহিদুল ইসলাম (সোনালী আঁশ), বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির শুকুর মামুদ (একতারা) ও জাতীয় পার্টির (জেপি) প্রার্থী সাদেক সিদ্দিকী (বাইসাইকেল)। 

টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনে দুইবারের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ছানোয়ার হোসেন দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। তিনি ঈগল প্রতীকে নির্বাচনে লড়ছেন। এ আসনে নৌকার প্রার্থী কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মামুন অর রশিদ। কাদের সিদ্দিকীর ছোট ভাই মুরাদ সিদ্দিকী এ আসনে মাথাল প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন। আওয়ামী লীগের বহু নেতাকর্মী প্রকাশ্যে দুই স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। এখানে স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঈগল) ছানোয়ার হোসেন ও নৌকার প্রার্থী মামুন অর রশিদের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। 

এ আসনে অন্য প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা হলেনÑ বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত স্বতন্ত্র প্রার্থী খন্দকার আহসান হাবিব (কেটলি), প্রতীক পাওয়ার পর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়ে নৌকাকে সমর্থন দেওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী জামিলুর রহমান মিরন (ট্রাক), জাতীয় পার্টির মোজাম্মেল হক (লাঙ্গল), তৃণমূল বিএনপির শরিফুজ্জামান খান (সোনালী আঁশ), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের তৌহিদুর রহমান চাকলাদার (নোঙ্গর) ও বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির হাসরত খান ভাসানী (একতারা)। 

টাঙ্গাইল-৬ (দেলদুয়ার-নাগরপুর) আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য আহসানুল ইসলাম টিটু নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করছেন। এ আসনে তার শক্তিশালী কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নেই। ফলে তিনি অনেকটা নির্ভার রয়েছেন। এ আসনের অন্য প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা হলেনÑ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি স্বতন্ত্র প্রার্থী তারেক শামস্ খান হিমু (ঈগল), ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আশরাফুল ইসলাম (ট্রাক), জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম (লাঙ্গল), বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির আব্দুল করিম (একতারা), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের খন্দকার ওয়াহিদ মুরাদ (নোঙ্গর) ও বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন (ফুলের মালা)। 

টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনে সাতবারের সংসদ সদস্য একাব্বর হোসেনের মৃত্যুর পর উপনির্বাচনে নির্বাচিত হন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খান আহমেদ শুভ। এবারও তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে এখানে আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা মির্জাপুর উপজেলা পরিষদের পদত্যাগকারী চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু ট্রাক প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। এ আসনে আওয়ামী লীগের অন্য মনোনয়ন প্রত্যাশী ও উপজেলা এবং পৌর আওয়ামী লীগের অধিকাংশ নেতাকর্মী তার পক্ষে সরাসরি অবস্থান নিয়েছেন। এ ছাড়া এ আসনে জাতীয় পার্টির (লাঙ্গল) প্রতীকের প্রার্থী পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জহিরুল ইসলাম জহির তাকে সমর্থন দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। ফলে এ আসনে নৌকা অনেকটা ঝুঁকিতে রয়েছে। 

এ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী অন্য প্রার্থীরা হলেনÑ বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির গোলাম নওজব চৌধুরী (হাতুড়ী), কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের আরমান হোসেন তালুকদার (গামছা), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের মঞ্জুর রহমান মজনু (মশাল), জাকের পার্টির মোক্তার হোসেন (গোলাপ ফুল), বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির রুপা রায় চৌধুরী (ডাব) ও নির্বাচনে ট্রাক প্রতীকের প্রার্থীকে সমর্থন দিয়ে সরে দাঁড়ানো জাতীয় পার্টির জহিরুল ইসলাম জহির (লাঙ্গল)। 

টাঙ্গাইল-৮ (বাসাইল-সখীপুর) আসনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম গামছা প্রতীকে লড়ছেন। এখানে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন সাবেক সংসদ সদস্য ও সখীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনুপম শাজাহান জয়। প্রথম দিকে অনুপম শাজাহান জয়ের ব্যাপক জনপ্রিয়তা থাকলেও পরে তা কমতে থাকে। বহুল আলোচিত আটিয়া বন অধ্যাদেশ বাতিলে ভূমিকা নেওয়ার প্রতিশ্রুতিতে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর গামছা প্রতীকের জনপ্রিয়তা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। কাদের সিদ্দিকীর জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকার মধ্য দিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা শেষ হয়। এ আসনে কাদের সিদ্দিকীর গামছা ও অনুপম শাজাহান জয়ের নৌকার মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 

এ আসনের অন্য প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা হলেনÑ তৃণমূল বিএনপির পারুল আক্তার (সোনলী আঁশ), বিকল্পধারা বাংলাদেশের আবুল হাশেম (কুলা), বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির মোস্তফা কামাল (ডাব) ও জাতীয় পার্টির রেজাউল করিম (লাঙ্গল)।

টাঙ্গাইলের আটটি আসনে ১২টি উপজেলার ১১টি পৌরসভা ও ১২০টি ইউনিয়ন এবং একটি ক্যান্টনমেন্ট বোর্ডের ১ হাজার ৫৬টি কেন্দ্রের ৬ হাজার ৮১০টি ভোট কক্ষ রয়েছে। জেলার ৩১ লাখ ৪৬ হাজার ৬৭২ জন ভোটার রয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ ১৫ লাখ ৭৭ হাজার ৬০৩ আর নারী ১৫ লাখ ৬৯ হাজার ৪৯ জন। এ ছাড়া ২০ জন তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন।

জেলার আটটি আসনের বিভিন্ন বয়সি ও নানা শ্রেণি-পেশার ভোটাররা জানান, দীর্ঘদিন পর ভোট দেওয়ার সুযোগ পেয়ে অনেকেই কেন্দ্রে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন। তবে হালনাগাদ তালিকার ১ লাখ ৭৭ হাজারের বেশি নতুন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগে উন্মুখ রয়েছেন। ভোটাররা প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও তারা এরই মধ্যে পছন্দের প্রার্থী বেছে নিয়েছেন। বিএনপিসহ সমমনা দলগুলোর ভোট বর্জনের কর্মসূচি চলমান থাকলেও তার বিশেষ কোনো প্রভাব পড়বে না বলে জানান তারা।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা