× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

মিতু ও তার বান্ধবীরা

অদ্রিজা ঘোষ

প্রকাশ : ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৩:০০ পিএম

আপডেট : ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৩:১০ পিএম

 গল্পটির জন্য সুন্দর ছবিটি এঁকেছে মিথিলা ভৌমিক। সে ঢাকার ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী

গল্পটির জন্য সুন্দর ছবিটি এঁকেছে মিথিলা ভৌমিক। সে ঢাকার ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী

সেবার কনকনে শীত পড়েছিল। হুট করে স্কুল ছুটি দিল। মিতু ভাবল, এমন সময় বন্ধুদের নিয়ে কোথায় ঘুরতে গেলে মন্দ হয় না। অনেক কষ্টে মিতু তার পরিবার এবং কিছু বান্ধবীকে রাজি করাল। মিতু ও তার বান্ধবীরা চট্টগ্রামের এক পাহাড়ে ঘুরতে গেল। তারা ঢাকা থেকে বাসে করে চট্টগ্রামে গেল। সেখান থেকে তারা অনেকগুলো যানবাহন বদলে পাহাড়ের এক গ্রাম পেল। কিন্তু গ্রামে ঢুকে তারা একজন মানুষকেও দেখতে পেল না। চারদিকে নিস্তব্ধ ও গা ছমছমে পরিবেশ। দেখে মনে হচ্ছে অনেক বছর থেকে কেউ মনে হয় এখানে বাস করে না। এমন সময় মিতু বলে উঠল, ‘আমরা কি তবে ভুল ঠিকানায় চলে এসছি।’ ওর আরেক বান্ধবী তাকে বলল, ‘আমার মনে হচ্ছে আমরা হারিয়ে গেছি। এখানে তো গুগল ম্যাপও কাজ করছে না।’  হঠাৎ ওদের সামনে মধ্যবয়স্ক এক নারী বলে ওঠেন, ‘আমাকে দেখে ভয় করো না। তা ছাড়া দেখে মনে হচ্ছে তোমরা অনেক দূর থেকে এসেছ। তোমরা সবাই আমার বাড়ি চলো। সেখানে বিশ্রাম নেবে।’ সঙ্গে সঙ্গে মিতুরা তার বাড়িতে গেল। সেখানে গিয়ে মিতুরা তো অবাক। সেখানে যেন উৎসব চলছে। একপাশে নাচ-গানে মেতেছে সবাই। এর মধ্যে চলছে মাংস পোড়ানোর কাজ। মিতুদের তখন মনে হলো তারা ১০০ বছর পেছনে চলে গেছে। সেখানে এমন আনন্দমুখর পরিবেশ ছিল মিতুরাও কখন যে নাচা শুরু করে দিয়েছে। অনেক ফুর্তিতে ওদের সময় কাটতে লাগল। অনেক মজার মজার রান্না করা খাবার খাওয়াল। ছুটির দিনগুলো ওরা ওই গ্রামে পার করল। সেদিন মিতুরা সেখান থেকে চলে আসবে, সেদিন যার সঙ্গে ওরা ওই উৎসবে গিয়েছিল। তিনি এসে বললেন, ‘আবার কোনো ছুটি পেলে এসো। আমাদের কিন্তু ভুলে যেও না। গ্রাম থেকে বেরিয়ে অনেকখানি পথ হেঁটে এসে একটা বাজার পেল। সেখানে ওরা কিছু খেয়ে নিল। ওরা দাঁড়িয়ে ওখানে কাটানো দিনগুলোর গল্প করতে ছিল। এমন সময় তার পাশে থেকে একজন বয়স্ক মানুষ তাকে জিজ্ঞাসা করেন, ‘তোমরা কোথায় গেছিলে। ওদিকে তো কেউ থাকে না।’ লোকটি বলতে লাগলেন, ‘আমার দাদুর কাছে শুনেছি যে, ওই গ্রামে একবার মহামারি লেগেছিল। দাদু প্রাণে বেঁচে আসতে পারলেও গ্রামের সবাই ওই মহামারিতে মারা যায়।’ একে ওপরের দিকে তাকিয়ে ইশারায় বলতে থাকে, এত দিন তাহলে আমরা কার বাড়িতে ছিলাম। এমন সময় মিতু যখন ভদ্রলোকটিকে কিছু বলবে, তখন দেখে সে মানুষটিও উধাও।

সপ্তম শ্রেণি, আকিজ কলেজিয়েট স্কুল, নাভারণ, যশোর

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা