× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

মুক্তিপণ চেয়ে কেউ যোগাযোগ করেনি: পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

প্রবা প্রতিবেদক

প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০২৪ ১৭:৪৩ পিএম

আপডেট : ১৪ মার্চ ২০২৪ ১৯:০৫ পিএম

মুক্তিপণ চেয়ে কেউ যোগাযোগ করেনি: পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

ভারত মহাসাগর থেকে জলদস্যুদের হাতে জিম্মি বাংলাদেশি জাহাজ ‘এমভি আবদুল্লাহ’ ও এর নাবিকদের মুক্তি দিতে কেউ এখনো মুক্তিপণ চেয়ে যোগাযোগ করেনি বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) মো. খুরশেদ আলম এ তথ্য জানিয়েছেন। জাহাজের নাবিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত ও তাদের নিরাপদে দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করার লক্ষ্যে কৌশল নির্ধারণে এই সভা হয়।

জাহাজের অবস্থান সম্পর্কে সচিব খুরশেদ আলম বলেন, ‘আমাদের কাছে যতটুকু তথ্য আছে তাতে এটা পরিষ্কার যে, এই জাহাজটি উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ সীমানা দিয়ে যায়নি। জলদস্যুরা আগে থেকেই অপেক্ষায় ছিল। জাহাজটি দখলে নেওয়ার পর তারা সেটি নিয়ে সোমালিয়ার উদ্দেশে রওনা হয়। আজ ভোর নাগাদ সোমালিয়ার কাছাকাছি নোঙর করেছে জাহাজটি।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘দস্যুদের সঙ্গে আমাদের সরাসরি কোনো যোগাযোগ হয়নি। তারাও যোগাযোগ করেনি। তাদের কী দাবি-দাওয়া, সে বিষয়ে আমরা এখনো কিছু জানি না। তারা কোনো মুক্তিপণও দাবি করেনি।

‘মু‌ক্তিপণের যে বিষয়‌টি বলা হ‌চ্ছে, এটা মি‌ডিয়ার সৃ‌ষ্টি। আমাদের কাছে এখনো কোনো মুক্তিপণ তারা (দস্যুরা) চায়নি। মুক্তিপণের ব্যাপারে কোনো যোগাযোগও তারা করেনি,’ যোগ করেন মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স স‌চিব।

তিনি বলেন, ‘আমাদের এই জাহাজটি কিন্তু হাইরিস্ক এরিয়ার (উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ সীমানা) ভেতর দিয়ে যায়নি। তারপরও তারা (জলদস্যু) অপেক্ষায় ছিল। হয়‌ত তারা কোনো জাহাজ পায়নি। সেজন্য এটা হাইজ্যাক ক‌রে‌ছে। তারা জাহাজটি দখলে নেওয়ার পর সোমালিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে। আজকে ভোর নাগাদ সোমালিয়ার কাছাকাছি তারা জাহাজটি নোঙর করেছে।’

তি‌নি আরও ব‌লেন, ‘এখনো জানি না তাদের কি দাবি-দাওয়া। আমরা যদি জানতে পারি তখন হয়ত এটা কৌশলগতভাবে আপনাদের (মিডিয়া) পুরোপুরি জানাতে পারব না। গণমাধ্যমে এ ধরনের প্রতিবেদন আসলে তারা ওখানে দেখবে। যখন তারা দেখবে সরকার চাপের মধ্যে আছে তখন তারা কিন্তু তাদের ডিমান্ড বাড়িয়ে দেবে। আমরা চেষ্টায় আছি। নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী কথা বলেছেন। আমাদের ডিজি শিপিং আমাদের সঙ্গে আছেন। জাহাজের যে মালিক তাদের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। মোটামুটি সব পক্ষের সঙ্গে আমাদের সার্বক্ষণিক যোগাযোগ আছে।’

না‌বিক‌দের নিরাপদে ফেরা‌নো প্রস‌ঙ্গে মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স স‌চিব ব‌লেন, ‘অলরেডি প্রসেস শুরু হয়ে গেছে। আমাদের প্রথম লক্ষ্য নাবিক ২৩ জন এবং জাহাজ মালামালসহ দেশে ফেরত আনা। সেই লক্ষ্য থেকে আমরা বিচ্যুত হব না। হয়ত তাড়াতাড়ি একটা সুসংবাদ দিতে পারব।’

এর আগে বাংলাদে‌শি জাহাজ ছিনতাই‌য়ের ঘটনা তু‌লে ধরে মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স স‌চিব ব‌লেন, ‘এ বিষয়ে আমাদের আগের অভিজ্ঞতা আছে। জাহানমণি নামের একটি জাহাজ ২০১০ সালে এমন ঘটনার মুখে পড়েছিল। ১০০ দিনের মাথায় জাহাজটি আমরা ফেরত আনতে পেরেছিলাম। এরপর আরেকটি ঘটনা ঘটেছিল, মালয়েশিয়ান জাহাজ আলবেদো। সেখানে আমাদের সাতজন বাংলাদেশি নাবিক ছিল।’

খুর‌শেদ আলম বলেন, ‘আপনারা যদি দেখেন জাহানমণি আনতে একশ দিন লেগেছে। আর মালয়েশিয়ান জাহাজ থেকে সাতজন না‌বিকে‌কে আনতে লেগেছে তিন বছর চার মাস। কাজেই সময় একটা ব্যাপার। খুব একটা সেনশেনাল নিউজ হবে সেটা আশা করা ঠিক হবে না।’

গত ৪ মার্চ বাংলাদেশের এস আর শিপিংয়ের ১৩ মিটার গভীরতার জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ মোজাম্বিকের মাপুতু বন্দর থেকে কয়লা নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশে রওনা দেয়। গত মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে খবর আসে, ভারত মহাসাগরে জাহাজটি ছিনতাই হয়েছে। জাহাজের ২৩ নাবিককে স্পিডবোটে সোমালিয়া উপকূলে নিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন একজন। এমভি আবদুল্লাহ জাহাজে থাকা নাবিকদের মধ্যে চট্টগ্রামের বাসিন্দা আছেন ১১ জন। বাকিরা ফেনী, নোয়াখালী, খুলনা, ফরিদপুর, সিরাজগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলার। আক্রান্ত নাবিকদের সবাই সুস্থ রয়েছেন বলে জানিয়েছেন এসআর শিপিংয়ের কর্মকর্তারা। জাহাজটি ছাড়িয়ে আনতে কাজ শুরু করেছে এসআর শিপিং। এ জন্য সরকার ও আন্তর্জাতিক মেরিটাইম অর্গানাইজেশনের মাধ্যমে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা