× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

১০ দিন পর ফের অবরোধে ফিরল বিএনপি

প্রবা প্রতিবেদন

প্রকাশ : ২৪ ডিসেম্বর ২০২৩ ০৮:৪৮ এএম

অবরোধের প্রভাব নেই সড়কে। ফাইল ফটো

অবরোধের প্রভাব নেই সড়কে। ফাইল ফটো

প্রায় ১০ দিন পর অবরোধ কর্মসূচিতে ফিরল বিএনপি ও সমমনা দলগুলো। সরকারের পদত্যাগ, নির্বাচনকালীন নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠার এক দফা দাবি ও অসহযোগ আন্দোলনের পক্ষে আজ রবিবার সারা দেশে ফের অবরোধ কর্মসূচি পালন করবে তারা। সর্বশেষ গত ১২ ডিসেম্বর থেকে ১৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ৩৬ ঘণ্টার এই কর্মসূচি পালিত হয়। 

বিএনপির সিনিয়র যু্গ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী গত ২০ ডিসেম্বর সারা দেশে অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দেওয়ার পর এই অবরোধ কর্মসূচিও ঘোষণা করেছিলেন। তিনি গতকাল শনিবার এক ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে আজকের অবরোধ কর্মসূচি সফল করার জন্য সর্বস্তরের নেতাকর্মীসহ জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তবে বিএনপির যুগপৎ আন্দোলনের শরিক গণতন্ত্র মঞ্চ আজ অবরোধ দেয়নি। এর পরিবর্তে আজ সমাবেশ ও গণসংযোগ-মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বেলা সাড়ে ১১টায় এই কর্মসূচি পালন করবে তারা। 

এ বিষয়ে গণতন্ত্র মঞ্চের সমন্বয়ক ও গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি প্রতিদিনের বাংলাদেশকে বলেন, ‘আজ আমরা সমাবেশ ও গণসংযোগ-মিছিলের কর্মসূচি দিয়েছি।’ 

গণতন্ত্র মঞ্চের নেতা ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দীন মাহমুদ স্বপন বলেন, সবসময় আমরা একই কর্মসূচি পালন করে এসেছি। রবিবার আমরা সমাবেশ ও গণসংযোগ-মিছিলের কর্মসূচি দিয়েছি। সামনে আবার একই কর্মসূচি পালন করব।

গত ২৮ অক্টোবর রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির মহাসমাবেশ পণ্ড ও নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর বিএনপিসহ সমমনা জোটগুলো ১১ দফায় ২২ দিন অবরোধ ও চার দফায় ৫ দিন হরতাল কর্মসূচি করে।

এরই মধ্যে ভোট বর্জন ও অসহযোগ আন্দোলনকে সফল করতে ঢাকাসহ সারা দেশে তিন দিনের গণসংযোগ কর্মসূচি শেষ করেছে বিএনপি ও সমমনা দলগুলো। গত বৃহস্পতিবার এ কর্মসূচি শুরু হয়। গণসংযোগ কর্মসূচির শেষদিন গতকাল শনিবার রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে লিফলেট বিতরণ করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, সিনিয়র যু্গ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ।

এ সময় তাদের সঙ্গে ছিলেন বিএনপির স্বাস্থ্য-বিষয়ক সম্পাদক ডা. মো. রফিকুল ইসলাম, সহস্বাস্থ্য-বিষয়ক সম্পাদক ডা. পারভেজ রেজা কাঁকন, মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব মো. আবদুর রহিম, যুগ্ম আহ্বায়ক ওমর ফারুক পাটোয়ারী, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ বিএনপির সদস্য নাদিয়া পাঠান পাপন, রামপুরা থানা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক নীলুফার ইয়াসমীন নীলু, কেন্দ্রীয় মহিলা দলের সহসম্পাদক ফাতেমা তুজ জোহরা মিতু, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. তৌহিদুর রহমান আউয়াল, সহসাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক জিয়ন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক সাদেক মিয়া, সহসংস্কৃতি-বিষয়ক সম্পাদক জান্নাতুল নওরিন ঊর্মি, ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক সৈয়দা সুমাইয়া পারভীন, প্যাবের সাংগঠনিক সম্পাদক মহসিন হোসেন, ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের সহসভাপতি শাহাবুদ্দীন ইমন, কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা মিরাজ হোসেন, ডা. প্রিন্স, আশরাফুল আসাদ, শ্রমিক দলের নেতা আনোয়ার হোসেন খান, সিদ্দিকুর রহমান মিন্টু, জিল্লুর রহমান খানসহ অনেকে।

এদিকে সমমনা দলগুলোর মধ্যে লিফলেট বিতরণ করেছে ১২ দলীয় জোট, জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট, গণ অধিকার পরিষদ (নুর), গণ অধিকার পরিষধ (রেজা কিবরিয়া) ও গণফোরাম-বাংলাদেশ পিপলস লীগের নেতারা। এ ছাড়া গণতন্ত্র মঞ্চের উদ্যোগে গণসংযোগের উদ্দেশ্যে একটি মিছিল জাতীয় প্রেস ক্লাব থেকে পল্টন হয়ে কাকরাইল মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। এর আগে প্রেস ক্লাবে সমাবেশ হয়। 

রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক হাসনাত কাইয়ুমের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন নাগরিক ঐক্যের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল্লাহ কায়সার, গণসংহতি আন্দোলনের নির্বাহী সমন্বয়কারী আবুল হাসান রুবেল, ভাসানী অনুসারী পরিষদের সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান রিজু, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সিনিয়র সহসভাপতি তানিয়া রব ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির রাজনৈতিক পরিষদের সদস্য বহ্নিশিখা জামালী। সমাবেশ পরিচালনা করেন রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা সাইফুল্লাহ হায়দার। 

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণতন্ত্র মঞ্চের বর্তমান সমন্বয়ক ও গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দীন মাহমুদ স্বপন, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের সাংগঠনিক সমন্বয়ক ইমরান ইমন প্রমুখ।

গত বছরের ১০ ডিসেম্বর থেকে শেখ হাসিনা সরকারের পদত্যাগ, নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন ও সংসদ বাতিলের ‘এক দফা’ দাবিতে বিএনপি এবং সমমনা জোট গণতন্ত্র মঞ্চ, ১২ দলীয় জোট, জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট, গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য, গণফোরাম-পিপলস পার্টি, গণ অধিকার পরিষদ, এলডিপি, লেবার পার্টি, এনডিএম প্রভৃতি সংগঠন যুগপৎ আন্দোলন শুরু করে। এক বছরের বেশি সময়ে নানা কর্মসূচির মাধ্যমে আন্দোলন চলে। এ ছাড়া এই আন্দোলনে আলাদা আলাদাভাবে গণতান্ত্রিক বাম জোট, জামায়াতে ইসলামী, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, এবি পার্টি প্রভৃতি দলও রাজপথে রয়েছে।

ডিএমপিতে সতর্ক থাকবে পুলিশ

অবরোধকে ঘিরে গতকাল নয়াপল্টনে বিএনপির অফিসের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া রাজধানীর প্রবেশপথ, বিভিন্ন সরকারি স্থাপনাসহ গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। রয়েছে তল্লাশি চৌকিও। রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে সব ধরনের সহিংসতা, ভাঙচুর, যানবাহন চলাচলে বাধা প্রতিরোধে ডিএমপি পুলিশ ছাড়াও র‌্যাবের টহল দল থাকবে। 

এ বিষয়ে ডিএমপির উপকমিশনার মো. ফারুক হোসেন জানিয়েছেন, বিএনপি সকাল-সন্ধ্যা অবরোধ ডেকেছে। অবরোধের নামে যাতে সহিংসতার মতো ঘটনা না ঘটে, সে বিষয়ে পুলিশ শক্ত অবস্থানে থাকবে। যেকোনো ধরনের নাশকতা প্রতিরোধে পুলিশ প্রস্তুতি নিয়েছে।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এআইজি (মিডিয়া) ইনামুল হক সাগর প্রতিদিনের বাংলাদেশকে জানান, সারা দেশে অবরোধকে ঘিরে যাতে কোনো ধরনের নাশকতা-সহিংসতা না ঘটে, সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে এসপি, রেঞ্জ ডিআইজি, পুলিশের সকল ইউনিটের প্রধানদের সঙ্গে কথা বলেছেন আইজিপি। অবরোধ পরিস্থিতিতে ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের করণীয় সম্পর্কে সব দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। 

বিভিন্ন স্থানে বিএনপির লিফলেট বিতরণ, খুলনায় মশাল মিছিল

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোট বর্জন ও অসহযোগ আন্দোলনকে সফল করতে গণসংযোগ কর্মসূচির শেষদিন গতকাল দেশের বিভিন্ন স্থানে লিফলেট বিতরণ করেছেন বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। গতকাল সিলেট নগর, মাগুরা, চুয়াডাঙ্গা, ফেনী, নোয়াখালী, বরগুনার বেতাগী ও নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে লিফলেট বিতরণ করা হয়। এ ছাড়া রবিবারের অবরোধ কর্মসূচির সমর্থনে গতকাল সন্ধ্যায় খুলনা নগরীতে মশাল মিছিল করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। নগরীর সাতরাস্তা মোড় থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে শান্তিধাম মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মোল্লা মোশারফ হোসেন মফিজ ও এসএম শামীম কবির, রূপসা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোল্লা সাইফুর রহমান, বটিয়াঘাটা উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব খন্দকার ফারুক হোসেন, কয়রা উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব নূরুল আমীন বাবুল, বিএনপি নেতা মো. সরোয়ার হোসেন, জেলা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এসএম মাসুম বিল্লাহ, জেলা তাঁতী দলের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান মিন্টু, জেলা যুবদলের সহসভাপতি আইয়ুব হোসেন মোল্লা, শফিকুল ইসলাম বাচ্চু, শরিফুল আলম, মাহমুদুল হাসান লোটাস প্রমুখ অংশ নেন।

এদিকে সিলেট নগরীতে লিফলেট বিতরণকালে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ হোসেন চৌধুরী ও জেলা যুবদলের সভাপতি অ্যাডভোকেট মুমিনুল ইসলাম মুমিনকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। গতকাল বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে নগরীর বন্দরবাজার এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপি) উপকমিশনার মো. আজবাহার আলী শেখ। 

তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছেন সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদকরা।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা