× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

বিএনপি-জামায়াতের ডাকে আজ থেকে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল শুরু

প্রবা প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪ ০৮:৫৪ এএম

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির অফিস। ফাইল ছবি

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির অফিস। ফাইল ছবি

বিএনপি-জামায়াতসহ সমমনা দলগুলোর ডাকে আজ শনিবার সকাল ৬টা থেকে শুরু হয়েছে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল। সরকারের পদত্যাগের এক দফা দাবি, ভোটবর্জন ও অসহযোগ আন্দোলনের পক্ষে এই কর্মসূচি চলবে ভোটের দিন রবিবারসহ ভোটের পরদিন সোমবার সকাল ৬টা পর্যন্ত। 

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই কর্মসূচি ঘোষণা করে বলেন, ‘অবৈধ আওয়ামী সরকারের পদত্যাগ ও নির্বাচনকালীন নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠার এক দফা দাবিতে একতরফা নির্বাচন বর্জন ও অসহযোগ আন্দোলনের পক্ষে বিএনপিসহ সমমনা দলগুলো এই হরতাল কর্মসূচি পালন করবে।’

এ ছাড়া শুক্রবার রাজধানীতে ভোট বর্জনের আহ্বান জানিয়ে লিফলেট বিতরণকালে যুগপৎ আন্দোলনের শরিক ১২ দলীয় জোট ও গণঅধিকার পরিষদ (নুর) ভোটের দিন ‘গণ-কারফিউ’ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। আমার বাংলাদেশ পার্টি (এবি পার্টি) লিফলেট বিতরণকালে ভোটের দিনকে ‘কালো দিন’ আখ্যায়িত করে সকাল-সন্ধ্যা নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করে ‘স্বেচ্ছায় প্রতিবাদী লকডাউন’ পালন করার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। 

অসহযোগের ডাক দিয়ে ৭ জানুয়ারি ভোট বর্জনের আহ্বানে গত ২৬ ডিসেম্বর থেকে চার দফায় টানা আট দিন গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ কর্মসূচির পর বিএনপির ৪৮ ঘণ্টা হরতালের এই কর্মসূচি এলো। গত ২৮ অক্টোবর রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির মহাসমাবেশ পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে পণ্ড হয়ে যাওয়ার পর থেকে চার দফায় ৫ দিন হরতাল করেছে বিএনপি ও সমমনা দলগুলো। এ ছাড়া ১২ দফায় ২৩ দিন সারা দেশে সড়ক, রেল ও নৌপথে অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে তারা।

বিএনপির অন্যতম নীতিনির্ধারক ড. আব্দুল মঈন খান শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) তার রাজধানীর গুলশানের বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলন করে সরকারের সকল হুমকি-ধমকি উপেক্ষা করে জনগণকে ভোট বর্জনের জন্য আবারও আহ্বান জানিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি ভোটারদের যারা কেন্দ্রে যেতে বাধ্য করবে, তাদের চিহ্নিত করে নাম-পরিচয় সংরক্ষণের আহ্বানও জানিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে মঈন খানের সঙ্গে ছিলেন দলের অপর স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান ও সেলিমা রহমান।

লিখিত বক্তব্যে মঈন খান বলেন, ‘গণতন্ত্রকামী মানুষের প্রতি এই আহ্বান জানাব, আপনারা এই জনপ্রিতিনিধিত্ব বিহীন সরকারের কোনো হুমকি-ধমকি অথবা তাদের কোনো ভয়-ভীতিতে চিন্তিত হবেন না। আপনারা সাহসিকতার সঙ্গে সরকারের ভয়ভীতির মোকাবিলা করুন, যে বা যারা আপনাকে ভোটকেন্দ্রে যেতে বাধ্য করতে চায়, তাদের চিহ্নিত করুন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় জানাতে চাই, ভাতা কার্ড জব্দ করে কিংবা ভাতা বন্ধ করে দিয়ে কিংবা আমাদের জাতীয় পরিচয়পত্র ছিনিয়ে নিয়ে দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে ভোটকেন্দ্রে যেতে বাধ্য করে অগণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় যারা জড়িত হবেন বা হচ্ছেন, ভবিষ্যতে তাদের আইনের কাছে জবাবদিহি করতে হবে।’

ড. মঈন খান বলেন, সরকার নতুন করে সেই ২০১৪ সালের ফর্মুলা অ্যাপ্লাই করতে চায়। বিএনপিকে নিয়ে যে মিথ্যা ভাবমূর্তি দেশে বা বিদেশে প্রচার করতে চায় বা চাইছে, সেই প্রচেষ্টা ইতোমধ্যে ব্যর্থ হয়ে গেছে।

সরকার নাশকতা সৃষ্টি করে দায় চাপাচ্ছে : নজরুল ইসলাম খান

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান অভিযোগ করেন, সরকার বারবার তাদের আন্দোলনকে বিপথগামী করতে নানা ধরনের বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়িয়েছে। এখনও সেই অপচেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, ‘আপনারা ক’দিন আগে দেখেছেন যে, কেউ কিছু জানে না, কিন্তু পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হলো যে, হাসপাতালগুলোতে একটা নির্দিষ্ট দিনে শয্যা রেডি রাখার জন্য, যাতে তারা চিকিৎসা করতে পারে। ঠিক ওইদিন একেবারে ঢাকা মহানগরীর ভেতরে বেশকিছু গাড়িতে আগুন ধরে গেল এবং বেশকিছু লোক সেখানে মারা গেল। এবং কোনো তদন্ত ছাড়াই সেদিন পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হলো যে, এটা করেছে যারা অবরোধ করেছে তারা। গোটা ব্যাপারটা একটা অপরাধের কথা, অনুমাননির্ভর একটা কথা বলা …। বহু বছর ধরে সরকার নাশকতা করে আমাদের ওপর দায় চাপানোর এই অপকৌশল চালিয়ে আসছে।’

দলের স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য সেলিমা রহমান বলেন, ‘দেখুন হরতাল মানে কী? আমাদের প্রতিবাদ। আমাদের নেতাকর্মীরা শান্তিপূর্ণভাবে যতখানি সম্ভব তারা করবে। আমরা জনগণের কাছে আবেদন জানিয়েছি, আপনারা হরতাল পালন করুন, এই নির্বাচন বর্জন করুন। সেজন্য আমাদের নেতাকর্মীরা সেইভাবে শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করবে। আমাদের প্রতিবাদটা জাতির কাছে জানালাম, বিশ্বের কাছে জানালাম এবং জাতিও আজকে এর প্রতিবাদ করছে।’

রাজধানীতে রিজভীর নেতৃত্বে লাঠি মিছিল 

ভোটবর্জন ও অসহযোগ আন্দোলনের পক্ষে রাজধানীতে লাঠি মিছিল করেছেন বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। গতকাল সকালে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর নেতৃত্বে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে এ মিছিল হয়।

মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘আজ দেশে দুটি ধারা বিদ্যমান। একটি সত্য-ন্যায়, মানুষের ভোটাধিকার ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার পক্ষের। আরেকটি টাকা পাচার ও লুটেরাদের পক্ষের, মানুষের অধিকার হরণের পক্ষের। আমরা যারা ন্যায়ের পক্ষে আছি, তাদের বিজয় অবশ্যম্ভাবী।’

তিনি বলেন, ‘অবৈধ নির্বাচন জনগণ মেনে নেবে না। লুটেরাদের নির্বাচন জনগণ মেনে নেবে না।’ তিনি বিএনপির সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীসহ দেশবাসীকে ‘অবৈধ’ নির্বাচন বর্জনের আহ্বান জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম, সহ-যুব বিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী, তাঁতী দলের আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ, মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব আবদুর রহিম, ছাত্রদলের সাবেক সহসভাপতি আহসান উদ্দিন খান শিপন, আবদুল হালিম খোকন, তারেকুজ্জামান তারেক, রফিকুল ইসলাম রফিক, এজমল হোসেন পাইলট, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শওকত আরা ঊর্মি, যুবদলের সাহিত্য ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক মেহবুব মাসুম শান্ত, ঢাকা মহানগরী উত্তর ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক জসিম শিকদার রানা, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সাদিয়া পাটান পান, ছাত্রদল উত্তরের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল্লাহ হামিদ নীরব, মাসুদুর রহমান মাসুদ, রাজু আহমেদ, শামিমুর হোসেন, শাহাদাৎ হোসেন কাজল, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রনেতা এস এম আল মাহমুদ দিপুসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এছাড়া গণতন্ত্র মঞ্চ, ১২ দলীয় জোট, জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট, এলডিপি, গণঅধিকার পরিষদ (নুর), গণফোরাম, বাংলাদেশ পিপলস পার্টি, লেবার পার্টি ও গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ভোট বর্জনের আহ্বান জানিয়ে লিফলেট বিতরণসহ গণসংযোগ করেছে। এ ছাড়া জামায়াতে ইসলামও ভোট বর্জনের আহ্বান জানিয়ে সারা দেশে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা